ঢাকা, সোমবার, ১২ই এপ্রিল, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ২৯শে চৈত্র, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

আজ টাইগার অধিনায়ক তামিম ইকবালের জন্মদিন

ক্রিকেট বিশ্বের এক উজ্জ্বল নাম তামিম ইকবাল খান। দেশের ইতিহাসের সেরা এই ওপেনারের আজ জন্মদিন। ১৯৮৯ সালের ২০ মার্চ পৃথিবীতে এসেছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ওয়ানডে অধিনায়ক।

চট্টগ্রামে বিখ্যাত খান পরিবারে ইকবাল খান ও নুসরাত খান ইকবালের ঘরে জন্ম তামিমের।  ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের সময় ভারতের উত্তর প্রদেশ থেকে বাংলাদেশে চলে আসেন তামিম ইকবালের দাদা। ক্রিকেট পরিবারেই জন্ম তামিমের।

চাচা আকরাম খান বাংলাদেশের হয়ে টেস্ট খেলেছেন। নেতৃত্বও দিয়েছেন দলকে। তামিমের বড় ভাই নাফিস ইকবালও দেশের হয়ে ক্রিকেট খেলেছেন।

তামিম ইকবালের চাচা আকরাম খান বাংলাদেশের ক্রিকেটের এক অবিচ্ছেদ্য অংশ। তার হাত ধরেই ১৯৯৭ সালে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে উড়েছিল ক্রিকেটে জয়ের কেতন। এখন আছেন বিসিবির গুরুত্বপূর্ণ পদে। বড় ভাই নাফিস ইকবালও ছিলেন জাতীয় দলের স্টাইলিশ ওপেনার, টেস্ট সেঞ্চুরিয়ানও। স্বভাবতই ক্রিকেটটা তামিমের রক্তে, অস্থি ও মজ্জায়।

তামিম ইকবার উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান। একজন বামহাতি মারকুটে ব্যাটসম্যান। তার কৃতিত্ব বাংলাদেশ জাতীয় দলের জন্য অনেকবার সাফল্য এনে দিয়েছে। ব্যাট হাতে বহু ম্যাচ জিতিয়েছেন, ম্যান অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন বহুবার।

২০০৭ সালে হারারেতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ড্যাশিং এই ওপেনারের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অঙ্গনে অভিষেক হয়। এরপর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। জাতীয় দলের একাদশে অবিচ্ছেদ্য এক অংশই হয়ে গেছেন তিনি।

২০১৬ সালে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ওমানের বিপক্ষে ১ম বাংলাদেশি ক্রিকেটার হিসেবে টি-টোয়েন্টিতে সেঞ্চুরি করেন। ২০১১ সালে তামিম উইজডেন ক্রিকেটার্স অ্যালমেনাক ম্যাগাজিনের বছরের সেরা পাঁচ ক্রিকেটারের একজন হিসেবে নির্বাচিত হন। গ্রেম সোয়ান ও বীরেন্দ্র শেবাগকে পেছনে ফেলে তামিম এ খেতাব জিতে নেন। তরুণ প্রজন্মের বাংলাদেশিদের কাছে তিনি একজন আইকন।

এখন পর্যন্ত তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম।  তামিমের সংগ্রহ ৬২টি টেস্টে ৪৫০৮,  ২১১ ওয়ানডেতে ৭৩৭৩ আর ৭৮টি টি-২০তেঁ ১৭৫৮ রান। বাংলাদেশের একমাত্র ব্যাটসম্যান হিসেবে তিন ফরম্যাটেই সেঞ্চুরি আছে তার। মোট সেঞ্চুরি ২৩টি।