ঢাকা, সোমবার, ২৫শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১১ই মাঘ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

স্মিথের দাঁতভাঙা জবাবে অস্ট্রেলিয়ার দাপট

আগের দুই টেস্টের চার ইনিংসে একবারও অস্ট্রেলিয়ার স্কোর দুইশ পেরোয়নি। এজন্য স্টিভ স্মিথের ব্যাটে রানখরাকে কারণ ধরা হয়েছিল। ঠিক তাই, সাবেক অধিনায়কের ব্যাট হাসলো আর তাতে ভারতের বিপক্ষে বোর্ডার গাভাস্কার ট্রফিতে প্রথমবার ব্যাটিংয়ে দাপট দেখালো অস্ট্রেলিয়া।

২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরের পর প্রথমবার স্মিথকে সেঞ্চুরি উদযাপন করতে দেখা গেলো শুক্রবার। ৪৯০ দিন পর তার ব্যাটে এলো শতক। আর অস্ট্রেলিয়া ভারতের বিপক্ষে প্রথম সেঞ্চুরি দেখলো ৭ ম্যাচে প্রথমবার। ৩১ রানে খেলতে নেমেছিলেন স্মিথ, দারুণ খেলে সমালোচকদের দিলেন দাঁতভাঙা জবাব। দুই টেস্টের মাঝে ৮ দিনের ফাঁকা সময়কে যে ভালোভাবে ব্যবহার করেছেন, তা বোঝা গেলো তার স্বতঃস্ফূর্ত ব্যাটিংয়ে। ভারতীয় বোলারদের দারুণ সামাল দিয়ে ২০১ বলে করেন ক্যারিয়ারের ২৭তম টেস্ট সেঞ্চুরি।স্মিথের বিদায়ে শেষ হয়েছে অস্ট্রেলিয়ার ৩৩৮ রানের প্রথম ইনিংস। তবে কোনও বোলারের ফাঁদে পড়ে আউট হননি এই ডানহাতি ব্যাটসম্যান। যশপ্রীত বুমরার বলে দ্বিতীয় রানটি নিতে গিয়ে রবীন্দ্র জাদেজার সরাসরি থ্রোতে রান আউট হন স্মিথ। ২২৬ বলে ১৬টি চারে ১৩১ রান করেন সাবেক অধিনায়ক।

আগের দিন মারনাস লাবুশানের সঙ্গে অপরাজিত ৬০ রানের জুটিটাকে দ্বিতীয় দিন একশর ঘরে ঠেকান স্মিথ। গত দুই ম্যাচ ফর্মের বাইরে থাকা লাবুশানে সেঞ্চুরি করতে ব্যর্থ হলেও স্বাগতিকদের স্বস্তি ফেরান। ১৯৬ বলে ১১ চারে ৯১ রান করেন তিনি।

স্মিথের সঙ্গে জুটি বড় না করে সহজ ক্যাচ দিয়ে উইকেট ছুড়ে ফেলে আসেন ম্যাথু ওয়েড। জাদেজার বলে মিডল অনে বুমরার ক্যাচ হন তিনি। তাকেসহ ৪৬ রানের ব্যবধানে চার উইকেট তুলে নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে বিপদের মুখে ঠেলে দেয় ভারত। এই ধাক্কা সামলে উঠে সেঞ্চুরির দেখা পান স্মিথ। তখন তার সঙ্গে অন্য প্রান্তে ছিলেন মিচেল স্টার্ক (২৪)।দুজনের ৩২ রানের জুটিতে দলীয় স্কোর তিনশ ছাড়ায়। শেষ তিন উইকেটও দ্রুত হারায় স্বাগতিকরা। তবে স্মিথের সেঞ্চুরি গড়ে দিয়েছে ম্যাচের পার্থক্য।

জাদেজা দুর্দান্ত বোলিংয়ে নেন অস্ট্রেলিয়ার চার উইকেট। দুটি করে পান নভদীপ সাইনি ও বুমরা।

দলে ফিরে রোহিত শর্মা আশা জাগানিয়া জুটি গড়েন শুভমান গিলের সঙ্গে। ১৪ ইনিংসে প্রথমবার ওপেনিংয়ে পঞ্চাশ পার করে ভারত। ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ম্যাচে ফিফটির দেখা পান গিল। ১০০ বলে ৮ চারে হাফসেঞ্চুরি উদযাপন করেন। ফিফটি করার পরের বলেই আউট হন এই ওপেনার। ১০১ বলে ৫০ রানে তিনি প্যাট কামিন্সের শিকার।এর আগে অস্ট্রেলিয়া ভারতের উদ্বোধনী জুটি ভাঙে ৭০ রানে। রোহিতকে (২৬) ফিরতি ক্যাচ নিয়ে মাঠছাড়া করেন জশ হ্যাজেলউড। ৩০তম জন্মদিনে আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের ৩০০তম উইকেটটি নেন ডানহাতি পেসার।

১৫ রানের ব্যবধানে দুই ওপেনার আউট হলে চেতেশ্বর পুজারা ও অধিনায়ক আজিঙ্কা রাহানে দাঁত কামড়ে পড়ে থাকেন ক্রিজে। দিনের শেষ হয়েছে তাদের ১১ রানের অপরাজিত জুটিতে। পুজারা ৯ ও রাহানে ৫ রানে অপরাজিত ছিলেন। ভারত ২ উইকেটে ৯৬ রানে শনিবার তৃতীয় দিন খেলতে নামবে। ২৪২ রানে এখনও পিছিয়ে তারা।