ঢাকা, রবিবার, ২০শে জুন, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ৬ই আষাঢ়, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বাংলাবাজার ঘাটের স্পিডবোট ও ট্রলারের পাখা খুলে নিয়েছে প্রশাসন

মাদারীপুর: যাত্রী নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে বাংলাবাজার ঘাটে সকল স্পিডবোট ও ট্রলারের পাখা খুলে নিয়েছে শিবচর উপজেলা প্রশাসন। অবৈধভাবে প্রশাসনের চোখ ফাঁকি দিয়ে ঈদ মৌসুমে যাতে স্পিডবোট ও ট্রলার যাত্রীবহন না করতে পারে সেজন্য প্রশাসনের এই পদক্ষেপ বলে জানা গেছে।

শিবচর উপজেলা প্রশাসন সূত্রে জানা যায়, সরকারি নিষেধ অমান্য করে বাংলাবাজার-শিমুলিয়া নৌরুটে কোনো স্পিডবোট, ট্রলার ও লঞ্চ চলাচল করতে পারবে না। লঞ্চ চলাচল লকডাউনের পুরো সময়ে বন্ধ থাকলেও ঘাটের বিভিন্ন স্থান থেকে ট্রলার ও স্পিডবোট চলাচল করতো। ঈদ মৌসুমে নৌরুটে যাত্রীদের প্রচুর চাপ থাকে। এ সময় যাত্রীদের নিরাপত্তায় বাংলাবাজার ঘাটের স্পিডবোট ট্রলারগুলোর পাখা (প্রপেলার) খুলে উপজেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে রাখা হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, শিবচর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসাদুজ্জামান, ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মিরাজ হোসেনের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে বাংলাবাজার ঘাটের স্পিডবোট ও ট্রলারগুলোর ইঞ্জিনের পাখা খুলে নেয়। কোনো অবস্থাতেই অবৈধ নৌযান চালানো যাবে না বলে জানান তারা।

শিবচর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) আসাদুজ্জামান বলেন, সরকারের নির্দেশনা অমান্য করে বাংলাবাজার ঘাট থেকে কোনো লঞ্চ, স্পিডবোট, ট্রলার ছাড়তে পারবে না। ইতোমধ্যেই স্পিডবোট ও ট্রলারের পাখা খুলে নেওয়া হয়েছে। প্রতিটি স্পিডবোটে নির্ধারিত আসন তৈরি করে যাত্রী পারাপার করতে হবে। এ আদেশ অমান্যকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এছাড়াও চালকদের তিন মাস অন্তর অন্তর ডোপটেস্ট করা হবে। মাদকাসক্ত এবং ১৮ বছরের কাউকে কোনো অবস্থাতেই চালক হিসেবে রাখা যাবে না।