ঢাকা, শনিবার, ২০শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৫ই শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

দীপিকার চুলের মুঠি ধরে টেনে নিয়ে যান শাশ্বত চ্যাটার্জি!

বক্স অফিস জুড়ে চলছে এখন শুধুই ‘কল্কি ২৮৯৮ এডি’ এর ঝড়। নাগ অশ্বিন পরিচালিত এই সিনেমাটিই চলতি বছরের অন্যতম বড় বাজেটের সিনেমা। ছবিতে অভিনয় করেছেন অমিতাভ বচ্চন, দীপিকা পাড়ুকোন, কমল হাসান ও শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়। এ বাংলা ইন্ডাস্ট্রির প্রতিনিধিত্ব করেছেন শাশ্বত। 

এদিকে অন্তঃসত্ত্বা অবস্থায় ‘কল্কি ২৮৯৮ এডি’ ছবির শুটিং করছিলেন অভিনেত্রী দীপিকা পাড়ুকোন। ছবিতে রয়েছে বেশ কিছু লড়াইয়ের দৃশ্য। এমনই একটি দৃশ্য নিয়ে কথা বললেন অভিনেতা শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে শাশ্বত চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘একটি দৃশ্য রয়েছে যেখানে আমি ওর চুলের মুঠি ধরে টেনে নিয়ে যাই। ছবির একেবারে শেষ পর্যায়ের শুটিং ছিল এটি। মুম্বাইয়ে শুটিংটা হয়েছিল কারণ সেই সময়ে দীপিকা অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। অনেক শারীরিক কসরত ছিল ওই দৃশ্যে। রণবীরকে বলেছিলাম, ‘চিন্তা করো না। কঠিন দৃশ্যে বডি ডাবল ব্যবহার করা হবে।’ রণবীরও খুব বিনয়ী। ও শুনে হেসে বললে, ‘আচ্ছা দাদা’।’

তিনি জানান, এই দৃশ্যের শুটিংয়ের সময় সেটে উপস্থিত ছিলেন রণবীর সিংহ। লড়াইয়ের দৃশ্যে দীপিকার অতিরিক্ত খেয়াল রাখবেন ও নিজেও সতর্ক থাকবেন, রণবীরকে এমন আশ্বাস দিয়েছিলেন শ্বাশ্বত। প্রয়োজনে দীপিকার বদলে তার বডি ডাবল ব্যবহার করার কথাও জানানো হয়েছিল।

নিজের চরিত্রের ব্যাপারে শাশ্বত বললেন, খলনায়কের ভূমিকায় অভিনয় করেছি। এর বেশি এখন আর বলতে পারব না। প্রচুর মার খেয়েছি। মারের চোটে শেষে মরে গিয়েছি। দক্ষিণী ছবির অ্যাকশন সম্পর্কে কারও কোনও ধারণাই নেই। যে পোশাকে আমায় দেখছেন সেই পোশাকেরই ওজন পাঁচ কেজি! ওই ভারী পোশাক পরে মারপিট করতে হয়েছে। দিন শেষে ঘাড় ব্যথা হয়ে যেত।

উল্লেখ্য, চলচ্চিত্রটি ৩১০০ খ্রিস্টপূর্বাব্দ থেকে ২৮৯৮ খ্রিষ্টাব্দ পর্যন্ত সময়কালকে পৌরাণিক বিজ্ঞান কল্পকাহিনি ধারা হিসাবে সেট করে। ভৈরব, যিনি পোস্ট-অ্যাপোক্যালিপটিক শহর কাশীতে বাস করেন, কমপ্লেক্সে যাওয়ার জন্য পর্যাপ্ত ইউনিট পেতে চান। অন্যদিকে, শম্ভালা নামে একটি শহরও রয়েছে, যা দলিতদের জন্য একটি শরণার্থী শিবির। এদিকে, অশ্বত্থামা, যিনি সুমাথির সন্তান সুম ৮০ কে রক্ষা করার শপথ নিয়েছেন।

‘কল্কি ২৮৯৮ এডি’ ছবিটিতে ভৈরব নামে এক শিকারীর গল্প বলা হয়েছে। ক্যাম্পাসে নিজের জীবন গড়ার বিশাল উচ্চাকাঙ্ক্ষা তার। তিনি কীভাবে অশ্বত্থামা (অমিতাভ) এবং সুম ৮০ (দীপিকা) সঙ্গে পথ অতিক্রম করেন, তা নিয়েই এগোয় গল্পটি। কমল হাসান কমপ্লেক্সের শাসক সুপ্রিম ইয়াসকিনের চরিত্রে অভিনয় করেছেন। ছবিতে ম্রুনাল ঠাকুর, আন্না বেন, বিজয় দেবেরাকোন্ডা, দুলকার সালমান এবং ব্রহ্মানন্দমের মতো তারকারা অতিথি চরিত্রে অভিনয় করেছেন।