ঢাকা, শুক্রবার, ১৪ই জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ, ৩১শে জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

বিজেপির হারে তোপের মুখে সোনু নিগম!

ভারতের লোকসভা নির্বাচনের ফল প্রকাশের দিন সকাল থেকেই উত্তর প্রদেশের ফৈজাবাদের দিকে নজর ছিল সবার।এই আসনের অযোধ্যায় স্থাপিত হয়েছে রামমন্দির। নির্বাচনী প্রচারে বার বার উঠে এসেছে এই রামমন্দির প্রসঙ্গ। আর সেখানেই ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির।

ক্ষমতাসীন দলটির প্রার্থী লালু সিং হেরে গেছেন ৫৪ হাজার ৫০০ ভোটে। জয়ী হয়েছেন সমাজবাদী পার্টির অবধেশ কুমার। এরপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম থেকে সংবাদমাধ্যমের চর্চায় ছিল ফৈজাবাদ। বাদ গেলেন না সোনু নিগমও। রীতিমত অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন জনপ্রিয় এই গায়ক।

খোদ রামনগরীতে বিজেপির ভরাডুবিতে অবাক হয়েছেন অনেকেই। তারপর থেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে চলছে ব্যাপক আলোচনা-সমালোচনা। তাতেই যেন জড়িয়ে পড়লেন সোনু।

এক্স হ্যান্ডেলে ‘সোনু নিগম’ নামের অ্যাকাউন্ট থেকে এক পোস্টে লেখা হয়, ‘যে সরকার অযোধ্যাকে পুরো নতুনের মতো করে দিল, বিমানবন্দর থেকে রেলস্টেশন- সবকিছুতে উন্নয়নের জোয়ার আনল। প্রায় ৫০০ বছর পর রামমন্দির প্রতিষ্ঠা করল, সেই অযোধ্যায় নাকি জিততে পারল না বিজেপি।’

মুহূর্তেই ভাইরাল হয়ে যায় ওই পোস্ট। সোনু নিগম নামটা দেখেই মূলত ভুল করে বসে নেটিজেনদের একটা বড় অংশ। আসলে অনেকেই ভেবে নিয়েছিলেন পোস্টটি গায়ক সোনু নিগমেরই। কিন্তু সেখানেই ভুলটা করে বসেন অনেকে।

পোস্টটি আসলে সোনু নিগম সিংয়ের। উত্তরপ্রদেশের নাগরিক। তার নামের শেষাংশ ‘সিং’ অধিকাংশেরই নজর এড়িয়ে যায়। আর তাতেই ঘটে বিপত্তি। যার ফলে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে নানা কটূকথা, কটাক্ষের মুখে পড়তে হয় সোনুকে।

অবশেষে গায়ক নিজে জানান, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই নোংরামির জন্য বেশ কয়েক বছর আগে এক্স থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছিলেন তিনি।

এই ঘটনায় রীতিমত হতবাক সনু বলেন, ‘এত লোক আমাকে নিয়ে এত কথা বলছে, অথচ কেউ পুরো নামটাই লক্ষ্য করল না!’ সূত্র- এনডিটিভি।