ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৯শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৪ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

নাচের ভিডিওতে নিজের অসুস্থতার কথা জানালেন ব্রিটনি

‘আমি এখন নাচছি। আমার শরীরের ডানপাশের স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সৃষ্টিকর্তা দয়া না করলে এর কোনো চিকিৎসা নেই’— সম্প্রতি সামাজিক মাধ্যমে ভিডিও পোস্ট করে এভাবেই নিজের অসুস্থতার কথা জানান দিলেন মার্কিন সংগীত তারকা ব্রিটনি স্পিয়ার্স।

জানা গেছে, মস্তিষ্কে ঠিকমতো অক্সিজেন প্রবেশ না করার কারণে এই সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছেন ব্রিটনি। মাঝে মাঝে ঘুম থেকে ওঠে শরীরের বেশ কিছু অঙ্গ নাড়াতেও পারেন না। স্নায়ুর প্রভাবে অবশ হয়ে থাকে ডানপাশের হাত-পা।

নিজের ইনস্টাগ্রাম হ্যান্ডেলে একটি নাচের ভিডিও পোস্ট করে সেখানেই নাতিদীর্ঘ ক্যাপশনে বিষয়টি খোলাসা করেন এই ‘প্রিন্সেস অব পপ’। ব্রিটনি জানান, ‘আমার শরীরের ডান দিকের স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সৃষ্টিকর্তা ছাড়া কেউই এটা ঠিক করতে পারবে না। কখনও কখনও মস্তিষ্কে ঠিক মতো অক্সিজেন না পৌঁছলে স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হয়। আক্ষরিক অর্থেই মাথা কাজ করা বন্ধ করে দেয়। স্নায়ু ক্ষতিগ্রস্ত হলে শরীরে বেশ কিছু অঙ্গও অবশ হয়ে যায়।’

তবে মজার ব্যাপার হলো, নাচের সময় কোনো ব্যথাই অনুভব করেন না এই পপকন্যা। তিনি বলেন, ‘নাচের সময়টাতে আমার মস্তিষ্ক তার ভেতরকার শিশুর কাছে চলে যায়। অন্য সময় যেভাবে নাচি তখন সেভাবে নাচি না। বিশ্বাসই আমাকে শক্তি যোগায়।’

‘ঈশ্বরের কৃপায় আমি অবশেষে একটি ওষুধ পেয়েছি। যার মাধ্যমে আমি অনুভব করি আমার মস্তিষ্কে এবং ঘাড়ে অক্সিজেন যাচ্ছে’— যোগ করেন ব্রিটনি।

উল্লেখ্য, গত ২৬ আগস্ট ব্রিটনি স্পিয়ার্স ও ব্রিটিশ সংগীতশিল্পী এলটন জনের দ্বৈত গান ‘হোল্ড মি ক্লোজার’ প্রকাশ পায়। ১৯৭২ সালে প্রকাশিত জনের একক ‘টিনি ডান্সার’ গানের রিমেক এটি।

ব্রিটনির ইনস্টাগ্রাম পোস্ট দেখুন: