ঢাকা, শনিবার, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

রানির প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এখনো লন্ডনের রাস্তায় মানুষের ঢল

ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে এখনো হাজার হাজার মানুষ লাইন দিয়ে লন্ডনের ওয়েস্টমিনস্টার হলের দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন। রানির মরদেহ সেখানে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় শায়িত রাখা হয়েছে। শুক্রবার (১৬ সেপ্টেম্বর) বিবিসির এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

 

টেমস নদী বরাবর মানুষের এই লাইন প্রায় সাত কিলোমিটারের বেশি লম্বা হয়েছে। মধ্য লন্ডন থেকে এই লাইন পূর্ব লন্ডনের কাছাকাছি পৌঁছে গেছে।

বহু মানুষ বৃহস্পতিবার ভোর এমনকি বুধবার মধ্যরাত থেকে লাইন দিয়েছেন। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরে তারা অপেক্ষা করছেন।

 

রানিকে শ্রদ্ধা জানাতে ব্রিটেনের বিভিন্ন জায়গা এমনকি সারা বিশ্ব থেকে দলে দলে লোক লন্ডনে আসছেন।

অনলাইন বুকিং প্ল্যাটফর্ম হোটেল প্ল্যানার জানিয়েছে, তাদের ওয়েবসাইটে লন্ডনে হোটেলের রিজার্ভেশন ৪০০ শতাংশ বেড়ে গেছে।

রানির রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার বিস্তারিত বিবরণ এরই মধ্যে প্রকাশ করা হয়েছে, যেখানে বলা হয়েছে সোমবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সকালের দিকে রানির মরদেহ ওয়েস্টমিনস্টার প্রাসাদ থেকে ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে নিয়ে যাওয়া হবে।

রাজা তৃতীয় চার্লস ও রাজপরিবারের সদস্যরা কফিনের সঙ্গে সঙ্গে পায়ে হেঁটে যাবেন। রাজকীয় নৌবাহিনীর ১৪২ জন নাবিক একটি কামানবাহী শকটে করে কফিনটি টেনে নিয়ে যাবেন। তখন সেখানে দুই হাজারেরও বেশি আমন্ত্রিত অতিথি উপস্থিত থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

সোমবার সকাল ১১টায় শেষকৃত্য শুরু হয়ে দুপুরের ঠিক আগে অনুষ্ঠানটি শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সারা দেশব্যাপী দুই মিনিটের নীরবতা পালন করা হবে।

ওয়েস্টমিনস্টার অ্যাবিতে রাষ্ট্রীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়ার পর রানির মরদেহ লন্ডনের পশ্চিমে উইন্ডসর কা‌সলে নিয়ে যাওয়া হবে। সেখানে উইন্ডসর কাসলের পাশে সেন্ট জর্জ গির্জায় আরেকটি ছোট প্রার্থনা হবে।

উইন্ডসরের ডিন সেখানে একটি প্রার্থনা পরিচালনা করবেন। প্রায় ৮০০ জন লোক এতে উপস্থিত থাকবেন বলে মনে করা হচ্ছে। এসব হয়ে যাওয়ার পর সোমবারই রানির পরিবারের ঘনিষ্ঠ লোকজনদের জন্য আরেকটি প্রার্থনা সভা হবে।

এরপর রানীর কফিনটি সেন্ট জর্জ গির্জার রয়্যাল ভল্টে সমাহিত করা হবে। এখানেই রানির স্বামী এডিনবার্গের প্রয়াত ডিউকের মরদেহ সমাধিস্থ করা আছে।