ঢাকা, সোমবার, ১লা মার্চ, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১৬ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সিলেটে মা-মেয়েকে হত্যা: বাঁচানো গেলো না শিশু তাহসানকেও

সিলেট: সৎ মা রুবিয়া বেগম ও বোন মাহাকে (৯) কুপিয়ে হত্যা করেন ঘাতক মাহমুদ হোসেন আবাদ। সৎ ভাই অবুঝ শিশু তাহসানের (৭) দেহ ক্ষতবিক্ষত করেন ওই পাষণ্ড।

রুবিয়া ও মাহার মরদেহ রাতেই নেওয়া হয় ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসাপাতালের মর্গে। মৃত্যুর প্রহর গোণা অবুঝ শিশু তাহসানকে ক্ষতবিক্ষত অবস্থায় ভর্তি করা হয় হাসপাতালে। ওসমানী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চিকিৎসকরা রাতভর চেষ্টা করেন তাকে বাঁচাতে। কিন্তু তাদের সেই চেষ্টা বিফল হয়েছে।

শুক্রবার (১৯ ফেব্রুয়ারি) ভোর ৪টার দিকে চিকিৎসকদের সব চেষ্টা ব্যর্থ করে দিয়ে মৃত্যুর কাছে হার মানে অবুঝ শিশু তাহসান। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাহসানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

বৃহস্পতিবার রাত ১২টার দিকে সিলেট সদর উপজেলার শাহপরান থানাধীন বিআইডিসি এলাকায় মীর মহল্লায় ভাড়া বাসায় সৎ মা ও ভাই-েবোনকে কুপিয়ে জখম করে সৎ ছেলে মাহবুব হোসেন আবাদ (২০)।

ঘটনাস্থলেই নিহত হন রুবিয়া ও তার মেয়ে মাহা (৯)। গুরুতর অবস্থায় নিহতের শিশু পুত্র তাহসানকে হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও চিকিৎসকরা তাকে বাঁচাতে প্রাণান্তর চেষ্টা করেন। কিন্তু ভোরবেলা মারা যায় তাহসান।

ঘটনার পর পরই পুলিশ মাহবুব হোসেন আবাদকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। ঘাতক বিয়ানীবাজার এলাকার আবদাল হোসেন বুলবুলের ছেলে।

সিলেট মহানগর পুলিশের শাহপরান থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আনিসুর রহমান তাহসানের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করে বলেন, মা-মেয়ে, ছেলে তিনজনকে একাই খুন করেছেন মাহবুব হোসেন আবাদ। খুনের ঘটনায় ব্যবহৃত খন্তি ও ছুরি উদ্ধার করেছে পুলিশ। নিহতদের মরদেহ ময়না তদন্ত শেষে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হবে।