ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ, ১২ই ফাল্গুন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

জল্পনার অবসান, বিজেপিতে যোগ দিলেন যশ-সহ একঝাঁক তারকা

সাংবাদিক বৈঠক চলাকালীনই চিৎকার। সাদা শার্ট পরে মঞ্চে উঠে এলেন নায়ক।বসলেন সামনের সারিতে। মুহূর্তের অপেক্ষা। তারপরেই উঠে এলেন মঞ্চে। হাতে তুলে নিলেন গেরুয়া পতাকা। জল্পনার অবসান। বিজেপিতে যোগ দিলেন যশ দাশগুপ্ত।

বিজেপিতে যোগ দিয়েই যশের মুখে পরিবর্তনের আভাস। জানালেন ‘সিস্টেমের মধ্যে থেকেই বদল করতে হবে। ‘ তিনি আরও বলেন, ‘আমি এখনও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সম্মান করি। আমি এখনও নিজেকে ওনার ভাই বলি। ‘

নুসরতের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা হয়েছে কিনা সেটা নিয়েও মুখ খোলেন যশ। বলেন, ‘নুসরত আমার বন্ধু। আমাদের বন্ধুত্ব জীবিকার সূত্রে। আমাদের পেশা অভিনয়। নুসরত তার মতাদর্শে তৃণমূলে রয়েছে আর আমি আমার মতাদর্শে বিজেপিতে। আমার আরেক বন্ধু মিমিও তৃণমূলে রয়েছেন। কিন্তু আমরা আবার একসঙ্গে কাজ করব। রাজনীতির রঙ এখানেই থাক। টলিউডে রাজনীতির রঙ না লাগানোই ভালো। ‘ শুরুতে বিজেপিতে যোগদান নিয়ে কোনো মন্তব্য করেননি যশ। একেবারে মঞ্চে এসে চমকে দিলেন তিনি।

অন্যদিকে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন সৌমিলি বিশ্বাস ও পাপিয়া অধিকারীও। কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও মুকুল রায়ের উপস্থিতিতে গেরুয়া শিবিরের পতাকা হাতে তুলে নেন পাপিয়া অধিকারী, সৌমিলি বিশ্বাস ও ত্রমিলা ভট্টাচার্য।

বুধবার (১৭ ফেব্রুয়ারি) সকালেই জানা যায়, টালিগঞ্জের একঝাঁক অভিনেতা-অভিনেত্রী যোগ দিচ্ছেন বিজেপিতে। তালিকায় ছিলেন অভিনেত্রী পাপিয়া অধিকারী, সৌমিলি বিশ্বাস ও ত্রমিলা ভট্টাচার্য। ছিলেন মুকুল রায় ও স্বপন দাশগুপ্তও। সেই মতোই আজ বিজেপি যোগ দিলেন একঝাঁক তারকা।

সকালেই বিজেপি সূত্রে খবর ছিল, গেরুয়া শিবিরে যোগ দিতে পারেন অভিনেতা যশ দাশগুপ্ত। জল্পনা চলছিল, অভিনেত্রী সায়নী ঘোষের যোগদানের ব্যাপারেও। মঙ্গলবার মুকুল রায়ের জন্মদিনে ভিডিও বার্তায় শুভেচ্ছা জানান টলিউডের একঝাঁক অভিনেতা-অভিনেত্রী। সেই দলে ছিলেন সায়নী ঘোষও। তবে সায়নী ঘোষ জানিয়েছেন, এখনই বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন না।

হিরণ চট্টোপাধ্যায়ের বিজেপিতে যোগদান নিয়ে জল্পনা শুরু হলেও সাংবাদিক সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন না তিনি। কিন্তু সূত্রের খবর, তৃণমূল ছাড়ছেন হিরণ। বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকের কথা স্বীকার করলেন অভিনেতা। জানালেন, কিছু ফরম্যালিটিজ বাকি।

অন্যদিকে জল্পনা তৈরি হয়েছিল প্রসেনজিৎ চট্টোপাধ্যায়ের বিজেপিতে যোগ দেওয়া নিয়েও। গতকাল বিজেপি নেতা অনির্বাণ গঙ্গোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর জল্পনা শুরু হয়। প্রসেনজিৎ-এর ছবি পোস্ট করেছিলেন সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া রুদ্রনীল ঘোষও। কিন্তু প্রসেনজিৎ বলেন, ‘অতিথিকে স্বাগত জানানো বাংলার সংস্কৃতি। অতীতেও বিভিন্ন ক্ষেত্র ও পেশার মানুষের সঙ্গে দেখা করেছি। আমি অপরের মতামতকে গুরুত্ব দিই। আমারও নিজস্ব মতামত আছে। অনির্বাণের সঙ্গে সাক্ষাতে কোনো রাজনৈতিক জল্পনা নেই। আমি আমার কাজের দিকে নজর দিতে চাই। ’